টিন সার্টিফিকেট আবেদন ও ডাউনলোড tin Certificate Application 2022

টিন সার্টিফিকেট আবেদন ও ডাউনলোড এই টিউটোরিয়াল টি দেখতে আসেন। তবে ধরে নিলাম আপনার হয়তো এই বিষয়টি জানার ইচ্ছা আছে৷ সেই ধারনা থেকে সম্পুর্ন বিস্তারিত বলতে চেষ্টা করবো। যাতে আপনারা বাসায় বসে মোবাইল দিয়ে টিন সাটিফিকেট আবেদন ও ডাউনলোড করতে পারেন।  বিষয়টি খুবই সহজ তবে যে করতে পারে। তাই এই টিউটোরিয়ালটি দেখার পর আপনি নিজেই এই কাজটি করতে পারেন৷ Tin certificate application and download 2022 Process. 

টিন সার্টিফিকেট আবেদন

 

টিন সাটিফিকেট কি? 

প্রথমে আমাদেরকে জানতে হবে আসলে টিন সার্টিফিকেট কি? যদি সহজ ভাষায় বলতে চাই টিন সার্টিফিকেট হচ্ছে ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন ডকুমেন্ট। এটা দ্বারা এটাই বোঝায় আপনি একজন ট্যাক্স পরিশোধ কারী৷আপনার যদি অনেক জমি অথবা গাড়ি থাকে সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সরকার প্রদত্ত ট্যাক্স প্রদান করতে হবে। আর এই খাজনা বা ট্যাক্স প্রদান করছেন এটার দলিল হলো টিন সাটিফিকেট।

টিন সাটিফিকেট কেন করবো বা প্রয়োজন কী,গুরুত্বপূর্ণ কেন? 

বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে আপনাকে অবশ্যই এই সার্টিফিকেটটি প্রয়োজন হবে। কেননা আপনি যদি সঞ্চয় পত্র  করতে চান তাহলে এই সার্টিফিকেটটি খুবই প্রয়োজন। যদি আপনার সঞ্চয় পত্র 2 লক্ষ টাকার মধ্যে হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে এ সার্টিফিকেট প্রয়োজন নেই। তবে এর অধিক টাকা সঞ্চয় পত্র করতে হলে আপনাকে অবশ্যই এ সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে। এছাড়া আপনি যদি বিদেশে যান সেক্ষেত্রেও আপনার এ সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে। আপনি যদি শহরে কোন ফ্ল্যাট কিনতে চান সে ক্ষেত্রে সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে এবং কোন গাড়ি ক্রয় করতে চান তাহলে এই সাটিফিকেট ছারা সম্ভব হবে না। সরকারি বিভিন্ন চাকরির ক্ষেত্রে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

টিন সার্টিফিকেট আবেদন ২০২২  করতে কি কি লাগবে? 

এই সার্টিফিকেটটি করতে হলে আপনাকে জাতীয় পরিচয় পত্র প্রয়োজন হবে। সেক্ষেত্রে আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে টিন সার্টিফিকেট আবেদন করতে পারবেন ও ডাউনলোড করতে পারবেন। প্রথমিক ভাবে একাউন্ট করার জন্য সঠিক নাম্বার প্রয়োজন হবে।

টিন সাটিফিকেট সুবিধা ও অসুবিধা কী?

সাটিফিকেট বলতেই সুবিধা। কোন একটি কাজের পর এটি পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে এটি তেমন কোন অসুবিধা নেই। তবে রয়েছে অনেক সুবিধা। যেমন :

  • *সঞ্চয় পত্র করতে পারবেন
  • *ব্যক্তিগত গাড়ি কিনতে পারবেন
  • *কোন ফ্ল্যাট ক্রয় করতে পারবেন
  • *যে কোন দেশে যেতে পারবেন
  • *গুগলে কাজ করে থাকলে আপনার ট্যাক্স কম কাটবে। ১০%
  • *অনলাইন মার্কেটপ্লেসে এটি সাবমিট করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে তারা ট্যাক্স কম কাটবে।

উপরের এই সুবিধাগুলো ছারা আরও অনেক সুবিধা আছে।

টিন সার্টিফিকেট আবেদন নিয়ম :

  • প্রথমে এই লিংক এ যান। https://secure.incometax.gov.bd/Registration/Index
  • এখানে আপনি একটি ইউজার আইডি, পাসওয়ার্ড ও ফোন নাম্বার নিয়ে “Register” ক্লিক করুন।
টিন সাটিফিকেট আবেদন

 

এরপর আপনার সেই নাম্বারে একটি ওটিপি কোড যাবে সেটি এখানে বসিয়ে দিন এবং “Activate ” ক্লিক করুন।

টিন সাটিফিকেট ডাউনলোড

 

এরপর ইউহার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগিইন করে নিন৷

এখানে আপনি “click here ” ক্লিক করুন এবং নতুন পেজ ওপেন হবে।

টিন সাটিফিকেট কি

 

এখানে আপনার আয়ের উৎস, ঠিকানা দিয়ে”go to next”ক্লিক করুন।

টিন সাটিফিকেট সুবিধা

 

এখানে আপনার নাম, পিতা ও মাতার নাম, আইডি নাম্বার ও ঠিকানা নিতে হবে৷ অবশ্য আইডি কার্ড অনুসারে হতে হবে৷ এরপর “go to next” ক্লিক করুন।

টিন সাটিফিকেট কেন করবো

 

এখন এখানে “টিক” দিয়ে সাবমিট এপ্লিকেশন ক্লিক করুন। এরপর আপনার সকল ডিটেল এখানে সো করবে। এখন আবেদন করা শেষ।

tin certificate download
  • এখন আপনার টিন সার্টিফিকেট আবেদন করা শেষ।

Tin certificate Download Process -টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড নিয়ম:

আপনার একাউন্ট এ লগিইন থাকা অবস্থায়। উপরের বাম কোনায় দেখবেন View tin certificate ঐখানে ক্লিক করুন। পাশে আপনার certificate টি সো হবে। এখন নিচে দেখবে “save certificate ” ক্লিক করুন। দেখবেন pdf টি ডাউনলোড হয়ে যাবে।

টিন সাটিফিকেট বাংলাদেশ

 

উপরের বিষয় গুলো যদি আপনি সঠিক ভাবে করেন সেক্ষেত্রে আপনি খুব সহজে অনলাইন থেকে আপনার টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। আর এই পোস্টটিতে যদি কোন ভুল হয়ে থাকে তাহলে দয়া করে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ৷

Related Stories

Leave A Reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay on op - Ge the daily news in your inbox